Category Archives: আউলিয়া কথা

হযরত আবুল হাসান সির্‌রী সাক্বতী রহমাতুল্লাহি তায়ালা আলাইহি

শায়খ আল্লামা ডঃ মুহাম্মদ হুসাইন মোশাহিদ রজভী

ভাষান্তরঃ মুহাম্মদ মহিউদ্দীন।

“হযরতে মা’রুফে কারখী সাহেবে ইলমে আমল,

সির্‌রীও সাক্বতী সিরাজে আউলিয়া কে ওয়াস্তে”

 

হযরত আবুল হাসান সিরিরী সাক্বতী রহমাতুল্লাহি তায়ালা আলাইহি সিলিসিলায়ে আলীয়া কাদেরিয়া সিরিকোটিয়ার দশম তম শায়খ।  ১৫৫ হিজরী মোতাবেক বাগদাদ নগরীতে তিনি জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর নাম ‘সিররুদ্‌ দ্বীন’ এবং কুনিয়ত ‘আবুল হাসান’। পরবর্তীতে তিনি সিররী সাক্বতী নামে প্রসিদ্ধ লাভ করেন। তাঁর সম্মানিত পিতার নাম হযরত মুগলিস রহমাতুল্লাহি তায়ালা আলাইহি।

 

এক ওলীর দোয়ার প্রভাব

হযরত সিররী সাক্বতী রহমাতুল্লাহি তায়ালা আলাইহি’র নিকট লোকেরা আরয করলো যে, হুজুর ! আপনার তরীক্বত জগতের সূচনালগ্নের সময় সম্পর্কে কিছু বলুন। তখন তিনি বললেন, “একদিন মহান বুযর্গ হযরত হাবীব রায়ী রহমাতুল্লাহি তায়ালা আলাইহি আমার দোকানের পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন। আমি তাঁর খিদমাতে কিছু রুটি পেশ করলাম, যাতে তিনি এগুলো ফকির-মিসকীনদের মাঝে বন্টন করে দেন। সে সময়ে তিনি Read the rest of this entry

হুজ্জাতুল ইসলাম হযরত ইমাম গাজ্জালী রহমাতুল্লাহি আলাইহি এর সংক্ষিপ্ত জীবনী – [শেষ পর্ব]

“প্রবন্ধটি পড়া হলে, শেয়ার করতে ভুলবেন না”

সম্পাদনায়,মুহাম্মদ গোলাম হুসাইন

মাদ্রাসা নিযামিয়া পরিত্যাগ এর পর থেকে………………

বায়তুল মাকদাস গমন ও নির্জনবাস অবলম্বন-

দুই বৎসর দামেশক নগরে অবস্হানের পরে তিনি বায়তুল মাকদাসে গমন করেন।তথায় তিনি ‘সাখরাতুসসাম্মা নামক বিখ্যাত প্রস্তরের নিকটবর্তী এক নির্জন প্রকোষ্টে অবস্হান করতে থাকেন। তিনি তাতে সর্বদা জিকির আজকারে মশগূল থাকতেন এবং সময় সময় নিকটবর্তী পবিত্র মাজার সমূহ যিয়ারত করতেন।

মকামে খলীলে তিনটি প্রতিজ্ঞা –

বয়তুল মাকদাসের যিয়ারত শেষ করে ‘মকামে খলীল’ নামক স্হানে হযরত ইব্রাহিম আলাইহিস সালাম এর মাযার শরীফ যিয়ারত করেন।সেখানে তিনি তিনটি প্রতিজ্ঞা করেন-
১।কখনও কোন রাজ দদরবারে যাব না।
২। কোন বাদশাহর কোন দান বা বৃত্তি গ্রহন করবো না।
৩।কাহারও সঙ্গে বিতর্কে প্রবৃত্ট হব না।
বায়তুল মাকদাসে অবস্হান কালে হযরত ইমাম গাজ্জালী রহমাতুল্লাহি আলাইহি অনেক সময় বায়তুল আকসায় Read the rest of this entry

হুজ্জাতুল ইসলাম হযরত ইমাম গাজ্জালী রহমাতুল্লাহি আলাইহি এর সংক্ষিপ্ত জীবনী – [১]

“প্রবন্ধটি পড়া হলে, শেয়ার করতে ভুলবেন না”

সম্পাদনায়,মুহাম্মদ গোলাম হুসাইন

ইমাম গাজ্জালী রহমাতুল্লাহি আলাইহি এর আসল নাম  আবু হামিদ মুহম্মদ।তাঁর পিতা ও পিতামহর উভয়ের নামই মুহম্মদ। তিনি খোরাসানের অন্তর্গত তুস নগর এর গাজালা নামক স্থানে জন্ম গ্রহন করেন। তাই সবাই উনাকে ঐ স্থানের নাম অনুযায়ী গাজ্জালী নামেই চিনে।
ইমাম গাজ্জালী রহমাতুল্লাহি আলাইহি এর যুগে পারস্যের সম্রাট ছিলেন সলজুক বংশীয় সুলতান রুকনুদ্দীন তোগরল বেগ। সলজুগ বংশীয় সুলতানের রাজত্বকাল মুসলমানদের চরম উন্নতির যুগ ছিল। তাঁদের পুর্বে ইরান শিয়া সম্প্রদায়ভুক্ত বুইয়া বংশীয় রাজাদের শাসনাধীন ছিল।এই সময় মুসলিম শক্তি সমূহ পরস্পর হিংসা-বিদ্বেষ,আক্রমন-প্রতিআক্রমনের ফলে দুর্বল হয়ে পরেছিল। কিন্তু সলজুক বংশীয় তুর্কীগন ইসলাম গ্রহন করলে তাদের প্রাক ইসলামী স্বভাব চরিত্র ও মুল্যবোধে বিরাট পরিবর্তন সাধিত হয় এবং তাদের মাধ্যমে এক অনুপম সভ্যতা গড়ে উঠে। ফলে Read the rest of this entry

সংক্ষেপে সুলতানে হিন্দ হযরত খাজা গরীব নেওয়াজ রাহমাতুল্লাহি তা’য়ালা আলাইহি এর জীবনী

প্রবন্ধটি পড়া হলে, শেয়ার করতে ভুলবেন না

হিজরী ৫৩৭ সন ছিল হযরত খাজা গরীব নেওয়াজ (রাহমাতুল্লাহি তা’য়ালা আলাইহি)-এর জন্ম কাল। এ সময় গোটা উত্তর পশ্চিম এশিয়া জুড়ে সামাজিক নৈরাজ্য, রাজনৈতিক অস্থিরতা ও অর্থনৈতিক সঙ্কট বিরাজ করতে ছিল। সর্বত্র নিরাপত্তাহীন ও অরাজকতার মাঝে লোকজনের দিনাতিপাত হত। অবশ্যই বলতে হয় হিজরী ষষ্ঠ শতাব্দী ছিল বিশ্ব মুসলমানদের জন্য এক কঠিন ক্রান্তিকাল।

হযরত খাজা গরীব নেওয়াজ (রাহমাতুল্লাহি তা’য়ালা আলাইহি)এর দাদা হযরত সাইয়েদ নজম উদ্দিন তাহের আল হোসাইনী (রাহমাতুল্লাহি তা’য়ালা আলাইহি) সামাজিক ও রাজনৈতিক কারণে নিরাপদ অবস্থানের উদ্দেশ্যে আরব ভূমি থেকে খোরাসান প্রদেশের সিস্তানে হিজরত করেন। এখানে তাঁর পিতা হযরত সাইয়েদ গিয়াস উদ্দিন হাসান (রাহমাতুল্লাহি তা’য়ালা আলাইহি) জন্ম গ্রহণ করেন। পরিণত বয়সে হযরত সাইয়েদ গিয়াস উদ্দিন হাসান (রাহমাতুল্লাহি তা’য়ালা আলাইহি) একজন আবিদ, আরিক সূফী বুযুর্গ হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। তাকেও ঐ নাজুক পরিস্থিতির শিকার হয়ে বা‘ভিটা ত্যাগ করতে হয়। তিনি স্বপরিবারে খোরাসান-এর সিস্তান এলাকা থেকে Read the rest of this entry

%d bloggers like this: